উজ্জ্বল ত্বক | ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফর্সা করে | কোন ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফর্সা করে

ফলের খোসা কিভাবে ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করে। কোন কোন ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করে।

ফলের খোসা যার কোনো গুরুত্ব নেই। এদের জায়গা হয় ডাস্টবিনে অথবা রাস্তার ধারে। কিন্তু আপনারা কি জানেন যে ফলের মতো ফলের খোসা ও পুষ্টিগুণে ভরপুর। ফলের খোসা নানাভাবে সাহায্য করে আমাদের শরীর গঠনে । শুধু শরীর গঠনে নয় ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে ও ফলের খোসা আমাদের অনেক সাহায্য করে । তাই আজকে আমি আমার এই পোষ্টে জানাব কিভাবে ফলের খোসা আমাদের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে বা কোন কোন ফলের খোসা ব্যবহার করে আমরা আমাদের ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করতে পারি সে বিষয়ে । তাহলে বন্ধুরা চলুন আমরা জেনে নেই কোন ফলের খোসা কিভাবে ব্যবহার করলে আমাদের সুফল মিলবে ।

বেদনার খোসা ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে

বেদনার খোসাতে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যেটা আমাদের ত্বকের উপরের অংশে জমে থাকা মৃতকোষ কে সরিয়ে ফেলে।শুধু মৃতকোষ না এটি আমাদের ত্বকের পিএইচ লেভেল ঠিক রাখার মধ্য দিয়ে আমাদের স্কিনের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। বেদানার খোসা ব্যবহার করার জন্য প্রথমে বেদনার খোসা টাকে ভালো মত শুকিয়ে নিন। তারপরে সেটি ব্লেন্ডারে অথবা শিলপাটায় গুঁড়ো করে নিন । আর সেই গুঁড়ো করার পাউডার 2 চামচ নিয়ে সেটা সঙ্গে এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ঘন সুন্দর একটা পেস্ট তৈরি করে নিন । আর এই পেস্টটি নিয়মিত মুখে লাগালে আপনি অনেক উপকার পাবেন। ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল

পেঁপের খোসা ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে

পেঁপে শুধু আমার শরীরের জন্য উপকারী নয়।পেঁপে আমাদের স্বাস্থ্যের উন্নতির সাথে সাথে পেঁপের খোসা আমাদের ত্বকের জন্য খুব ভালো কাজে আসে। পেঁপের খোসা তে রয়েছে বিশেষ কিছু উপাদান যেটা আমাদের কোলাজেনের উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়। আর কোলাজেনের উৎপাদন বেড়ে গেলে ত্বক সুন্দর উজ্জ্বল হতে থাকে। সেক্ষেত্রে কিছুটা পাকা পেঁপের খোসা নিয়ে মুখে ভালো করে ঘষে নিন। আপনি যদি নিয়মিত এটা করেন তাহলে অনেক ভালো উপকার পাবেন । আরেকভাবে আমরা পেঁপের খোসার সুফল পেতে পারি। সেটা হলো পেঁপে খোসা ভালো করে ধুয়ে পিঠে একটা পেস্ট বানিয়ে পেস্ট এর সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে মুখে যদি লাগাতে হবে আর অল্প সময়ে রেখে মুখটা ধুয়ে ফেললে দেখবেন। নিয়মিত এটা করলে আপনি অনেক ভাল ফল পাবেন

লেবুর খোসা ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে


একটা লেবুর খোসা নিন এবং আপনার মুখে ভালো করে ঘষে নিন। লেবুর খোসা মুখে ঘষলে আমাদের ত্বকের উপরের অংশের জমে থাকা ময়লা এবং মৃতকোষ পরিষ্কার হবে । যার ফলে আমাদের ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল হবে। সেইসাথে লেবুতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ব্রণের সমস্যা কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে । আপনি লেবুর খোসা অন্যভাবে ব্যবহার করতে পারেন সেক্ষেত্রে লেবুর খোসার পাউডার বানিয়ে তার সঙ্গে দুই চামচ বেদানার খোসার পাউডার 1 চামচ দারুচিনির পাউডার এবং অল্প করে দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে পারেন। আর এই পেস্ট আপনার মুখে লাগিয়ে অল্প সময় পরে ধুয়ে ফেলুন। আর এইভাবে লেবুর খোসা ব্যবহার করে আমরা আমাদের ত্বককে সুন্দর ফর্সা উজ্জ্বল করে তুলতে পারি। ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল

কলার খোসা ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে


কলার খোসাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন এবং  ভিটামিন। যেটা আমাদের ত্বক ফর্সা করার পাশাপাশি আমাদের ত্বককে একাধিক রোগের হাত থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে। কলার খোসা দিনে দুইবার ভালো করে মুখে ঘষে নিবেন তাহলে কিছুদিন ব্যবহার করার পরে দেখবেন যে আপনার ত্বক উজ্জ্বল এবং ফর্সা হতে শুরু করেছে। আপনারা আরেকভাবে কলার খোসাকে ব্যবহার করতে পারেন। সেটা হলো কলার খোসাকে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে। তারপরে কলার কলার খোসা গুঁড়ো করে নিতে হবে । আর সেই গুঁড়ো করা কলার খোসার সঙ্গে টকদই মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। সপ্তাহে যদি দুবার এভাবে আপনি আপনার ত্বকের পরিচর্যা করে তা করেন তাহলে দেখতে পাবেন যে কিছুদিনের মধ্যেই আপনার ত্বক উজ্জ্বল এবং ফর্সা হতে শুরু করেছে ।

কমলালেবুর খোসা ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে


কমলালেবুর খোসা আমাদের ত্বকের নানান রকম রোগ সারাতে দারুণ কাজে লাগে। কারণ কমলালেবুর খোসা এমন কিছু প্রাকৃতিক উপাদান রয়েছে যেগুলো আমাদের রং ফর্সা করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। অন্যান্য খোসার মত কমলালেবুর খোসার পাউডার বানিয়ে দই একসঙ্গে মিশিয়ে সারারাত মুখে ভালো মতো ম্যাসাজ করে নিতে হবে। আপনি যদি নিয়মিত এমনটা করেন তাহলে আপনার ত্বকের বলিরেখা কমে যাবে সেই সঙ্গে আপনার বয়স অনেক কম দেখাবে । ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল

নাশপাতির খোসা ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে


অল্পদিনের মধ্যে যদি ত্বক ফর্সা ও উজ্জ্বল করতে চান তাহলে নাশপাতির খোসা কে কাজে লাগান। কারণ নাশপাতি খোসাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার যেটা আমাদের ত্বকের কোলাজেন এর মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে । সেই সাথে আপনার মুখে যদি ব্রন এবং আরো অন্যান্য ত্বকের প্রবলেম থাকে তাহলে ্সেগুল  কমাতেও নাশপাতির খোসা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। নাশপাতির খোসা যেভাবে ব্যবহার করতে হয়। ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল
আরো জানুনঃ কি খেলে শারীরিক ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।

প্রথমে নাশপাতি খোসা গুলোকে পানির মধ্যে কিছুক্ষণ ফুঁটিয়ে নিন। তারপরে পানিটা কে ঠান্ডা করে সেটাকে মুখে লাগাতে হবে। আপনি যদি এই পানি আপনার ত্বকে লাগান তাহলে আপনার হাইপার পিগমেন্টেশন কম হবে । আরেকভাবে আপ্নারা নাশপাতির খোসা কাজে লাগাতে পারেন। সেটা হল অল্প পরিমাণে দুধ নিয়ে সেই দুধের মধ্যে নাশপাতির খোসা ভিজিয়ে রাখতে হবে এবং দুইঘন্টা পরে সেগুলো একটা পেস্ট তৈরি করে নিতে হবে এবং সেই পেস্ট এর সঙ্গে এক চামচ লেবুর রস এবং এক চামচ মধু মিশিয়ে মুখে ভালো করে লাগাতে হবে ।এবং মুখে লাগানোর অল্প কিছুক্ষণ পরে মুখটা ধুয়ে ফেলতে হবে। এমনটা নিয়মিত করলে আপনি সুন্দর ফর্সা উজ্জ্বল ত্বক পেয়ে যাবেন খুব সহজে। ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল

আপেলের খোসা ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে


আপেলের খোসা আমাদের ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। আপেলের রয়েছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপাদান এবং সেইসাথে আপেলের উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের স্বাস্থ্যের অনেক বেশি উন্নতি করে। সেক্ষেত্রে আপনি অল্প করে আপেলের খোসা পানিতে ফুটিয়ে নিন তারপরে সেই পানি টোনার হিসেবে আপনার মুখে লাগান। তারপর দেখবেন আপনি অনেকটা ভালো ফল পাবেন। ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল

মাত্র এক রাতে ফর্সা এবং উজ্জ্বল ত্বক পান

উজ্জল এবং ফর্সা ত্বক সবারই কাম্য। আপনি কিন্তু চাইলেই সহজে মাত্র এক রাতের মধ্যে উজ্জ্বল এবং ফর্সা ত্বক পেতে পারেন। আপনি আপনার প্রিয় মানুষটির সঙ্গে দেখা করতে যাবেন না অন্য কোথাও বেড়াতে যাবেন কিন্তু এদিকে আপনাকে ত্বক অনেক কালো এবং মলিন দেখাচ্ছে । তাহলে একদম চিন্তা নাই । ছোট্ট একটি কাজ করে মাত্র এক রাতেই আপনি আপনার ত্বককে উজ্জ্বল, ফর্সা এবং প্রাণবন্ত করে তুলতে পারেন। একই সাথে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে একদমই নরম এবং কোমল। ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল | উজ্জ্বল ত্বক

উপকরণ | উজ্জ্বল ত্বক

  • গরুর খাঁটি কাচা দুধ
  • এবং খাঁটি গোলাপজল

প্রথমেই যেটি করতে হবে সেটি হলো আপনার মুখটাকে ভালো করে পরিষ্কার করে নিতে হবে। প্রথমেই মুখে তুলোর সাহায্যে দুধ মেখে নিন। তারপরে ফেসওয়াশ এবং হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখটা ভালোমতো ধুয়ে নিন। সেক্ষেত্রে আপনার মুখ টাকে ভালো মত পরিষ্কার করতে হবে যদি আপনার ত্বক ভালো মতো পরিষ্কার না হয় তাহলে এই উপায়টি খুব ভালো কাজ করবে না । এরপর তোয়ালে দিয়ে হালকা করে আপনার মুখ মুছে নিন তারপরে মুখটা শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন । এর মধ্যে মুখে কিছু মানবেন না ।

উজ্জ্বল ত্বক | ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল উজ্জ্বল ত্বক | ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল

যখন আপনার ত্বক শুকিয়ে যাবে তখনই এই প্যাকটি তৈরি করে নিন । সমপরিমাণ কাঁচা দুধ এবং গোলাপজল একসাথে মিশিয়ে নিন । একসাথে মিশিয়ে নেওয়ার পরে এই মিশ্রণটি পরিষ্কার হাত দিয়ে আপনার সারা মুখে আলতো করে মাখুন । যতক্ষণ না শুকিয়ে যায় ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন । তারপরে মিশ্রণটি আপনার ত্বক শুকিয়ে গেলে না ধুয়েই রাত্রে ঘুমিয়ে পড়ুন । ঘুমানোর সময় একটু সাবধানে থাকবেন দেখবেন আপনার প্যাকটি মুখ থেকে মুছে না যায়। এরপরে সকালে ঘুম থেকে উঠে নরমাল পানি দিয়ে মুখটাকে ভালোমতো ধুয়ে নিন । তারপরে নিজেকে দেখুন। দেখবেন আগের তুলনায় আপনাকে অনেক বেশি ফর্সা এবং উজ্জ্বল দেখাচ্ছে ।


উজ্জ্বল ত্বক | ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল উজ্জ্বল ত্বক | ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল

  • দাগহীন উজ্জ্বল ত্বক,
  • উজ্জ্বল ত্বক পাওয়ার উপায়,
  • ত্বক সুন্দর রাখার খাবার,
  • ফর্সা ও উজ্জ্বল ত্বক পাওয়ার প্রাকৃতিক উপায়,
  • ত্বক পরিষ্কার করা,
  • ফর্সা ত্বক পাওয়ার সহজ উপায়,
  • ত্বক ফর্সা করার উপায়,
  • কোমল ত্বক পাওয়ার উপায়,

0/Post a Comment/Comments