শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন | শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন এর কারণ

শিশু (যেটাকে ইংরেজিতে বলা হয় চাইল্ড) পার্থিব ব্যক্তির প্রাথমিক রূপ। যে শিশুটি এখনও বয়ঃসন্ধিতে পৌঁছেছে না বা বয়ঃসন্ধিতে পৌঁছেছে তাকে সমাজে বা রাজ্যে শিশু হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। সাধারণত 18 বছরের কম বয়সী একটি ছেলে বা মেয়ে একটি শিশু হিসাবে চিহ্নিত হয়। কখনও কখনও একটি অনাগত শিশু, অর্থাৎ যে সন্তানের এখনও জন্ম হয় নি বা এখনও মাতৃগর্ভে থাকে, তাকে শিশু হিসাবে বিবেচনা করা হয়। একজন ব্যক্তি সর্বদা তার বাবা-মায়ের সাথে শিশু হিসাবে চিহ্নিত হন। মাতৃগর্ভে ভ্রুণ আকারে অ-ভূমিষ্ঠ সন্তানই শিশু  চিকিৎসাশাস্ত্রের সংজ্ঞানুযায়ী। প্রস্রাবে ইনফেকশন এর কারণপ্রস্রাবে ইনফেকশন এর কারণ

প্রস্রাবে ইনফেকশন এর কারণপ্রস্রাবে ইনফেকশন এর কারণপ্রস্রাবে ইনফেকশন এর কারণ

শৈশব এবং কৈশোরে মূত্রনালীর সংক্রমণ একটি সাধারণ সমস্যা। ছেলেদের ক্ষেত্রে শিশুর জন্ম নেওয়ার এক মাস বয়স পর্যন্ত এই সমস্যাটা দ্বিগুণ পরিমাণ হয়। কিন্তু এক বছর থেকে 15 বছর বয়স পর্যন্ত ছেলেদের তুলনায় এই প্রস্রাবের ইনফেকশনের সমস্যাটা মেয়েদের হয় 10 গুণ বেশি। পাঁচ বছর বয়স থেকে 15 বছর বয়স পর্যন্ত মেয়েদের প্রস্রাবের ইনফেকশনের ভুগে থাকেন। প্রায় 80 ভাগ রোগীর এই সমস্যাটা দেখা দেয় বার বার। প্রিয় বন্ধুরা আজকে আমি আমার এই পোষ্টে আপনাদেরকে জানাবো যে ছোট শিশুদের প্রসাবে ইনফেকশন কেন হয়। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশনয়।

শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন এর কারণ

মূত্রনালীর সংক্রমণের প্রধান কারণ রেকটাল ব্যাকটিরিয়া। মেয়েদের ক্ষেত্রে এই রোগটি সবচেয়ে বেশি হয় ই কোলাই নামে একটি জীবাণু দ্বারা হয়। এছাড়াও অন্যান্য যে ব্যাকটেরিয়াগুলো প্রস্রাবে ইনফেকশনের জন্য দায়ী সেগুলো হলঃসিউডোমোনাস,স্টাফাইলো কক্কাস অ্যালবাস, প্রোটিয়াস, ক্লেবসিয়েলা। ছেলেদের মধ্যে প্রোটিয়াস ব্যাকটেরিয়া বেশি দেখা যায়। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

আরো জানুন: বাসর রাতে শারীরিক মিলন করা কি ঠিক

এছাড়া সিউডোমোনাস, স্টাফাইলো কক্কাস, ই.কলাই, ক্লেবসিয়েলাও রোগটি ঘটিয়ে থাকে। মলত্যাগের সময় এই ব্যাকটিরিয়াগুলি প্রস্রাবের দ্বার দিয়ে মূত্রনালীতে প্রবেশ করে এবং একটি সংক্রমণ ঘটায়। এছাড়াও মূত্রনালীতে যদি কোনও বাধা থাকে তবে সংক্রমণ হয়। আপনি যদি কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগেন তবে মূত্রনালীর সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

প্রস্রাবে ইনফেকশন এর উপসর্গ

1 বছরের শিশুদের মধ্যে মূত্রনালীর সংক্রমণের লক্ষণগুলি বড় শিশুদের তুলনায় পৃথক। অনেক সময় 1 বছর বয়স পর্যন্ত বাচ্চাদের নির্ণয় করা কঠিন হয়ে পড়ে। ১ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুর যেসব উপসর্গ দেখা দেয় : জন্ডিস,ডায়রিয়া,বমি বমি ভাব,ওজন কমে যাওয়া, জ্বর। এক বছরের বেশি বয়সের শিশুদের ক্ষেত্রে প্রস্রাবের ইনফেকশনের যে উপসর্গগুলো দেখা দেয় সেগুলো হলো কখনো কখনো প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত পড়ে, প্রস্রাবে দুর্গন্ধ হয়, বিছানায় প্রস্রাব করে, প্রসবের সময় জ্বালাপোড়া, তলপেটে ব্যথা, জ্বর, ঘন ঘন প্রস্রাব, অল্প প্রস্রাব, কাঁপুনি। আপনার যদি নেফ্রাইটিস থাকে তবে আপনার কোনও লক্ষণ নাও থাকতে পারে।

প্রস্রাবে ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায়

প্রস্রাব আটকে না রাখা। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

অনেকে ঘরের বাইরে প্রস্রাব করতে চান না। দীর্ঘস্থায়ী প্রস্রাব ধরে রাখা মূত্রনালীর সংক্রমণের কারণ হতে পারে। মূত্রাশয়টিতে দীর্ঘ সময় ধরে প্রস্রাব ধরে রাখলে এতে ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বেড়ে যায়। প্রতি 20 মিনিট পরে, প্রস্রাবে ই কোলি ব্যাকটেরিয়াগুলির সংখ্যা দ্বিগুণ হয়। এবং আরও ব্যাকটেরিয়া মানে আরও ব্যথা । সুতরাং সর্বোত্তম উপায় হ'ল প্রচুর পরিমাণে জল পান করা এবং প্রস্রাবের মাধ্যমে ব্যাকটেরিয়া থেকে মুক্তি পাওয়া।

আরো জানুন: প্রেমের কাছে বয়স শুধু একটি সংখ্যা 

প্রচুর পানি পান। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

কোনও রোগ প্রতিরোধ করতে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন। মূত্রনালীর সংক্রমণ থেকে মুক্তি পাওয়ার একমাত্র এবং সর্বোত্তম উপায়। অনেকে মনে করেন এটি সারাক্ষণ জ্বলছে না, টয়লেটে গেলেই একমাত্র সমস্যা। তাই ভয় পেয়ে টয়লেটে যাওয়া অনেক কমিয়ে দেয়। এর পরিণতি ভয়াবহ। গবেষণায় দেখা গেছে যে প্রচুর পরিমাণে জল পান করা কেবল প্রস্রাবের সময় প্রদাহ হ্রাস করে না, তবে মূত্রনালীর সংক্রমণও দূর করে।

স্বাস্থ্যবিধি পালন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

সুস্বাস্থ্যের কোন বিকল্প হয় না। নিয়মিত গোসল করা, ডিলেডালা পোশাক পরা, সুতা কাপড়ের অন্তর্বাস ব্যবহার করা, ইন্টিমেট এরিয়া গুলো পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা আমাদের জন্য খুবই জরুরী।

ভিটামিন সি।শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

নিয়মিত ভিটামিন সি গ্রহণ মূত্রনালীর সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে। প্রতিদিন এক হাজার মিলিগ্রাম ভিটামিন সি গ্রহণের ফলে শরীরে উত্পাদিত অ্যাসিড প্রস্রাবে ব্যাকটিরিয়া সংক্রমণের বিস্তার হ্রাস করে।

যৌন মিলনের আগে ও পরে

যৌন মিলনের পরে অনেকে প্রস্রাবে জ্বলন্ত সংবেদন দেখেছেন। সহবাসের আগে এবং পরে মূত্রত্যাগ মূত্রনালীর সংক্রমণ রোধে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এটি পুরুষদের চেয়ে মহিলাদের ক্ষেত্রে বেশি কার্যকর।

আরো জানুন: কোন ফলের খোসা ত্বককে উজ্জ্বল ফর্সা করে

গরম পানিতে গোসল। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন

কুসুম গরম পানিতে গোসল করা মূত্রনালীর সংক্রমণজনিত ব্যথা উপশম করতে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করে। মূত্রনালীর সংক্রমণ ক্ষেত্রে কোনও গাফিলতি নেই। চিকিত্সা নিন। কয়েক দিনের চিকিত্সার সাথে আপনার সমস্ত মূত্রথলির সমস্যাগুলি দূর হয়ে যাবে। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

প্রস্রাবে ইনফেকশন থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়

ছেলের চেয়ে মেয়েরা বেশি আক্রান্ত হয়। মেয়েদের মূত্রনালী মলদ্বারের খুব কাছাকাছি থাকার কারণে মলদ্বার দ্বারা নির্গত ব্যাকটিরিয়া সহজেই মূত্রনালীতে প্রবেশ করতে পারে। এছাড়াও, মেয়েদের মূত্রনালী ছোট হওয়ায়, ব্যাকটিরিয়া সহজেই মূত্রাশয় এবং কিডনিতে পৌঁছতে পারে এবং সংক্রমণ ঘটায়। 

শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

মূত্রনালীর সংক্রমণ প্রসাব পরীক্ষার মাধ্যমে নির্ণয় করা যায়। আপনার মূত্রনালীতে কোন জীবাণু সংক্রমণ হয়েছে সেটা দেখার পরে ডাক্তার আপনাকে এন্টিবায়োটিক দেবে। কিন্তু এই অ্যান্টিবায়োটিক এর কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া গুলো হল চুলকানি, বমি, ডায়রিয়া ইত্যাদি। কিন্তু এই মূত্রনালীর সংক্রমণ যদি প্রথম দিকে ধরা পড়ে তাহলে খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হওয়া যায়। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

আরামদায়ক পোশাক পড়ুন | শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন

স্যাঁতসেঁতে জায়গায় ব্যাকটিরিয়া বৃদ্ধি পায়। সুতির অন্তর্বাস পরা এবং ঢিলেঢালা পোশাক পরা সংবেদনশীল অঙ্গগুলির ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধিকে ব্যাহত করে। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

আরো জানুন: (Amazon) অ্যামাজন জঙ্গল কে সারা পৃথিবী যে কারণে ভয় পায়।

গরম সেঁক নিন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

আপনার তলপেটে গরম জলের ব্যাগে গরম জল রাখুন, এটি মূত্রথলির জ্বালা এবং ব্যথা খুব দ্রুত মুক্তি দেয়।

কিছু সেলারি বীজ চিবান

সেলারি বীজ মূত্রবর্ধক হিসাবে কাজ করে। আপনি এক মুঠো সেলারি বীজ চিবিয়ে খেতে পারেন এবং রস পান করতে পারেন বা এক কাপ গরম পানিতে কিছু সেলারি বীজ দিয়ে ঢেকে রাখতে পারেন, মিশ্রণটি 6 মিনিটের পরে ছেঁকে নিয়ে এবং এটি পান করতে পারেন। এটি ইউটিআই প্রতিরোধ করে।

সোডা পান করুন শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন

আমি একদমই সফট ড্রিংকস নিয়ে কথা বলছিনা। আমি কথা বলছি বেকিং সোডা নিয়ে।  এক গ্লাস পানিতে 1 চা চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে যদি সপ্তাহে একবার সকালে এই মিশ্রণটি পান করা যায় তাহলে প্রসাবে জ্বালাপোড়া অনেকটাই কমে যাবে। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

প্রচুর পানি পান করুন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

যাদের ইউটিআই রয়েছে তাদের প্রচুর পরিমাণে জল খাওয়া দরকার। বেশি পরিমাণে জল খেলে প্রস্রাবের গতি বাড়ে এবং শরীর থেকে ব্যাকটেরিয়া নিঃসরণ হয়। শসা খান শসাতে প্রচুর পরিমাণে জল থাকে। প্রতিদিন কমপক্ষে একটি শসার টুকরো খেতে পারেন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।

আরো জানুন: স্মৃতিশক্তি বাড়ায় কোন খাবার।

তো বন্ধুরা আজকে আপনারা আমার এই পোস্ট থেকে জানতে পারলেন যে শিশুদের কেন প্রসাবে ইনফেকশন হয়। ইনফেকশন হলে কি করতে হবে কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে প্রসাবে ইনফেকশন দূর করা যায়। এবং প্রসাবে ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায় গুলো কি কি। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন। শিশুর প্রস্রাবে ইনফেকশন।


0/Post a Comment/Comments